যে ৪টি কারণে আপনি জীবনে সফল হতে পারছেন না?-মোটিভেশনাল

কেনো আপনি সফল হতে পারছেন না? Habits that you need to be changed in your life. How to be successful? 

জীবনে সফল না হওয়ার কারনগুলাঃ বলুন তো সফল হতে কে না চায়। কিন্তু একটা কথা আমরা সবাই  জানি, যে কিছু পেতে হলে কিছু হারাতে হয় কথাটি জানা শর্তেও কিন্তু আমরা ভালো কিছু পাওয়ার জন্য খারাপ কিছুকে ত্যাগ করতে পারি না।

আসলেই চেষ্টাই করি না। যখন আমরা আমাদের টার্গেট এর ওপর ভিওি করে আ্যাকশন নিতে শুরু করি তখনও আমাদের কিছু অভ্যাসের জন্যই আমরা কঠিন পরিশ্রমের পরেও সফলতাকে ছুতে পারি না। 

ভারতের মিসরাইলম্যান এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ডক্টর এ.পি.জে আব্দুল কালাম বলেন, (তুমি তোমার ভবিষ্যত পরিবর্তন করতে পারবে না কিন্তু তুমি তোমার অভ্যাস পরিবর্তন করতে পারবে আর তোমার অভ্যাসই নিশ্চিত ভাবে তোমার ভবিষ্যতও পরিবর্তন করে দিবে)।

যে ৪টি কারণে আপনি জীবনে সফল হতে পারছেন না?-মোটিভেশনাল

তাহলে আসুন আজকে জেনে নেওয়া যাক সেই সব অভ্যাসগুলো যেগুলো ত্যাগ করলে আমরা ভালো কিছু অর্থাৎ “সহজেই নিশ্চিত সাফল্যের সম্মুখীন হতে পারবো”।

১. আমিই সেরা (অহংকার)

হ্যাঁ এটা ঠিক যে আপনি নিজের ওপর বিশ্বাস রাখুন নিজেকে সেরা বলে নিজের আত্নবিশ্বাস ও কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে তুলুন।

কিন্তু অনেকেই আছে যারা বিশ্বাসটাকে অহংকারে পরিবর্তন করে ফেলে  আর নিজেকে সবার সামনে সেরা, অদ্বিতীয় বলে তুলে ধরেন যেনো তিনি একাই মানুষ আর বাকিরা এলিয়েন আর কি।

আপনার আশেপাশে চোখ কান খোলা রাখলে এরকম অনেক অহংকারী মানুষ আপনারা দেখতে পাবেন। কিন্তু এই অহংকার সামাজিক ও কর্মক্ষেত্রে ক্ষতিকর।

লোকজন আপনাকে স্বার্থপর ও অহংকারী ভেবে আপনার থেকে দূরে সরে যাবে,আপনাকে এড়িয়ে চলবে।যা আপনাকে সফলতা থেকে দূরে সরিয়ে দিবে।

তাই সবার প্রথম এই অহংকার ত্যাগ করুন।মানুষের সাধারণত দুটি হাত রয়েছে কিন্তু অনেকেই প্রায়ই আরো একটি হাতের ব্যবহার করে থাকে হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন। 

২.অজুহাতঃ

কখনোই কোনো কাজ শুরু করার আগেই বলবেন না যে না এটা আমার দ্বারা হবে না।একবার চেষ্টা করে দেখুন পারছেন কী না।যদি পারেন তো খুবই ভালো আর না পারলেও বসে থাকবেন না,হতাশ হয়ে পরার কোনো কারণ নেই।

একটা কথা মনে রাখবেন পৃথিবীতে সবাই সব কিছু করতে পারে না but চেষ্টা না করে কোনো কাজ ছেড়ে দিবেন না।হয়তো ঐ একটি কাজই আপনার জীবন বদলে দিতে পারতো যেগুলো আপনি কখনো  অজুহাত দিয়ে ছেড়ে দিয়েছেন।

তাহলে আপনার সফলতার জন্য অজুহাতটি আজ থেকেই ত্যাগ করে ফেলুন। 

৩.অধিক ভাবনাঃ

হ্যাঁ অবশ্যই আপনি ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করুন but ভবিষ্যতে কী হবে না হবে তা ভেবে  সময় নষ্ট করবেন না।ভবিষ্যৎ আপনার বা আমার কারো হাতে নেই। 

আমাদের হাতে তো রয়েছে শুধু বর্তমান সময়।তাই ভবিষ্যতের চিন্তা করে সময় নষ্ট না করে ঐ সময়টাকে কোনো ভালো কাজে ব্যবহার করুন।

যাতে আমাদের ভবিষ্যৎ সুন্দর হয়ে উঠবে।মনে রাখবেন অতীত চলে গেছে আর ভবিষ্যৎ এখনো আসেনি।তাই হাতে শুধুমাত্র বর্তমান রয়েছে।বর্তমান সময়কে আপনি যে কাজে ব্যবহার করবেন ভবিষ্যৎ তার ওপরই নির্ভরশীল।

যদি ভবিষ্যৎ কে সুন্দর করার জন্য শুধু ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে বর্তমানে আপনি ভালো কিছু কাজ করেন তবে অবশ্যই আপনার ভবিষ্যৎ সুন্দর হবে। আর যদি সারাক্ষণ ভবিষ্যতের কথা ভেবেই কাটিয়ে দেন তাহলে ভবিষ্যৎ সে রকমই খারাপ হয়ে উঠবে।

৪.একাধিক লক্ষ্যঃ

হয়তো আপনি অনেক কাজেই পারদর্শী। কিন্তু যদি আপনি সবগুলো কাজকে টার্গেট বানিয়ে একসাথে করতে থাকেন তাহলে আপনি কখনোই সফলতার শিকরে পৌঁছাতে পারবেন না। 

তাই এখনি আপনার কাজের তালিকা বানান আর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ আর যে কাজে আপনি সবথেকে বেশি  পারদর্শী সেই কাজগুলোকে পরপর সাজিয়ে যেকোনো একটি কাজকে সম্পূর্ণ focus এর সাথে করতে শুরু করুন।

অবশ্যই পড়ুন-

আর সবসময় আপনার পছন্দ করা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কাজটিতে মাস্টার এওয়ার্ড টার্গেট রাখুন।এই অভ্যাসটি আপনাকে নিশ্চিত ভাবে সাফল্যের শিকরে নিয়ে যাবে।

আমাদের শেষ কথাঃ

বন্ধুরা, আশা করি  আপনি বুঝতে পারছেন, পোস্টটি ভালো লাগল বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের (অনলাইন কাজ) ওয়েবসাইট সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাইটটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন নতুন নতুন সব পোস্ট পাওয়ার জন্য ভালো থাকবেন।

📝রাইটারঃ সুমাইয়া জান্নাত রিয়া 
📃Onlinekaj.com

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post