কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ব্যবসার আইডিয়া || Computer Training Center || সম্মানি ব্যবসার আইডিয়া

কষ্ট ও বাধা সকলের জীবনই আসে সব বাধা অতিক্রম করে নিজের গন্তব্য স্থানে পৌঁছাতে হবে।

বন্ধুরা পৃথিবীতে যতদিন যাচ্ছে ততটাই প্রযুক্তি ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে, আগেকার দিনে মানুষের সকলের বাড়িতে টিভি ও ছিল না।আজ প্রায় মানুষের ঘরে ঘরে কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ।

আপনি হয়তো বুজতেই পারছেন আগামী ১০ বছরের মধ্যে এর ব্যবহার কেমন বৃদ্ধি পাবে।সুতরাং আজকের আলোচনার বিষয়বস্তু হল-"কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রকে নিয়ে"।ব্যবসাটি দ্বার করাতে হলে কিছু মুলধন প্রয়োজন। তবে ব্যবসাটি একটি ভবিষ্যৎ মুখী ব্যবসা এককথায় বলা যেতে পারে-(স্মার্ট বিজনেস আইডিয়া)। চালুন শুরু করি।

.পুজি 

প্রথমে পুজির কথায় বলি এর পুজিটি দুটি সেক্টরে লাগে,

  • প্রথমতো দোকান ঘর।
  • দ্বিতীয়তো কম্পিউটার কিনতে।

সকলে বলে ব্যবসাটি করতে দুই লক্ষ টাকা লাগে তবে আজ আপনাদের বলব এক লক্ষ টাকারও কম পুজি নিয়ে (কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ব্যবসাটি) কিভাবে শুরু করতে পারবেন। তার আগে ব্যবসাটির আয়ের কথা  বলি তার জন্য আপনাকে পুরো পোস্ট শেষ অব্ধি পরতে হবে।

ব্যবসাটি থেকে আপনি প্রতি মাসে ৩০-৪৫ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই ব্যবসা করতে আপনাকে একটি "দোকান ঘর" নিধারিত করতে হবে।যা বাজারে মধ্যে হলে ভালো হয়। চেষ্টা করবেন দ্বিতীয় বা তৃতীয় তলায় দোকান ঘর নিতে, এতে 

করে আপনার সিকিউরিটি খুব সামান্য লাগবে।

২.কম্পিউটার

এর পর আসি “কম্পিউটার” ট্রেনিং সেন্টারের জন্য খুবএকটা দামি কম্পিউটার প্রয়োজন হয় না।প্রায় ৭-৯ হাজার টাকার মধ্যে আপনি ভালো কম্পিউটার সাজিয়ে নিতে পারবেন।

বন্ধুরা আপনারা যারা অল্প টাকা মধ্যে ভালো কম্পিউটার নিতে চান তারা mobile price bd এই সাইটে গিয়ে উপরে ল্যাপটপ ক্যাটাগরিতে আপনার পছন্দের ল্যাপটপটি দেখতে পারবেন। অথবা আমার সাথে Contact করতে পারেন কম দামের ল্যাপটপ কিনতে।

আপনি মাত্র পাঁচটি কম্পিউটার দিয়ে ব্যবসাটি শুরু করতে পারবেন। পরবর্তীতে গ্রাহক বৃদ্ধি পেলে কম্পিউটার আরও কিনে নিতে পারবেন।এবার চলুন যেনে নেয় স্টাটিং টা কেমন হবে।

৩.স্টাটিং

আসলে শিক্ষার্থী বেকার ও চাকরিজিবির এর ভুক্তা হয় তাই বিভিন্ন স্কুল কলেজ লিফলেট ছরিয়ে দিন আর চেষ্টা করবেন সকলকে ভালো সার্ভিস দিতে।

প্রথম কিছু মাস ফিস অল্প রাখুন সার্ভিস ভালো হলে, খুব দ্রুত গ্রাহক বৃদ্ধি পাবে। কম্পিউটারের সাথে ইন্টারনেট সংযোগ, প্রিন্টার, স্ক্যানার মেশিন রাখুন।

৪.কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ব্যবসার খারাপ পয়েন্ট গুলোঃ 

কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ব্যবসার আইডিয়া || Computer Training Center || সম্মানি ব্যবসার আইডিয়া

এবার চলুন উইক পয়েন্ট গুলো কি তা দেখে নেই, প্রথমতো বহু প্রশিক্ষণ কেন্দ্র আছে যারা তাদের নাম অজর্ন করে নিয়েছে।তাদের সাথে আপনাকে মোকাবেলা করতে হলে - প্রথম কিছু মাস লোস শিকার করতে হবে।

অবশ্যই পড়ুন-

কম্পিউটার একটি ইলেকট্রিক পন্য যদি নষ্ট হয় তাহলে শেষ, তবে সবকিছু মাথায় রেখে ব্যবসাটি শুরু করেন ধীরে ধীরে আপনি লাভের মুখ দেখবেন। বন্ধুরা এ পর্যন্ত আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। আরও নিত্য নতুন ব্যবসার আইডিয়া পেতে আমাদের ওয়েবসাইট সাবস্ক্রাইব করতে ভুলবেন।

আমাদের শেষ কথাঃ

বন্ধুরা, আশা করি কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে আপনি বুঝতে পারছেন, পোস্টটি ভালো লাগল বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের (অনলাইন কাজ) ওয়েবসাইট সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাইটটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন নতুন নতুন সব পোস্ট পাওয়ার জন্য ভালো থাকবেন।

📝রাইটারঃ-মোঃ রকি ইসলাম 

📃পাবলিশারঃ- onlinekaj.com

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post