মুদির ব্যবসার নতুন কৌশল || মুদির ব্যবসার আইডিয়া

মুদির দোকানের ব্যবসা- মুদির দোকানের ব্যবসার মাধ্যমে আপনি সফল হতে পারবেন, তা নিশ্চিত করে বলছি। তবে সফলতার কৌশলগুলো আপনাকে আগে জানতে হবে।

আজ আমরা আলোচনা করব অধিক পুঁজি ও সল্প পুঁজি দুটো দ্বারাই কিভাবে মুদির দোকানের ব্যবসা করে সফল হতে পারবেন।

মদি ব্যবসা এমন একটি ব্যবসা যে ব্যবসায় সব থেকে কম সময় লাগে গ্রাহক বৃদ্ধি পেতে।যত বেশি দোকান তত বেশি বিক্রি, শুধু মাথায় রাখতে হবে কৌশল গুলো।চলুন শুরু করি-

মুদি দোকানের ব্যবসার সফলতা সুত্রসমুহঃ

মুদি মালামাল,মুদি দোকানের পণ্য তালিকা,মুদি দোকান ডেকোরেশন ডিজাইন,মুদি দোকানের ডেকোরেশন

নিচে কিছু পয়েন্ট তুলে ধরা হলে যেগুলো ফলো করলে মুদির ব্যবসায় সহজে আপনি সফলতা অর্জন করতে পারবেন। 

☑️সঠিক স্থান বাচাইঃ

আপনার পুজি যদি একটু বেশি থাকে তাহলে-আপনাকে গুরুত্ব দিতে হবে ব্যবসাটির স্থানের উপর। আপনি তখন অবশ্যই চেষ্টা করবেন বাজারের মাঝখানে আপনার দোকানটি দ্বার করাতে।

পন্য নিয়ে চিন্তার কিছু নাই কারন ধীরে ধীরে পুঁজি ছাড়াও আপনার অনেক পন্য বিক্রি বৃদ্ধি পাবে। 

✅দোকানের ডেকোরেশন-মুদির ব্যবসার

দোকান বাইরের লুকিং অনেক ভালো করতে হবে,এবং দোকানটি সব সময় আলোকিত করে রাখতে হবে।বাজারে মধ্যে দোকান দিলে বাকি দেওয়া নিয়ে তেমন ঝামেলাই পরতে হবে না। বেশিরভাগ মানুষই নগদ টাকা দিয়ে পন্য ক্রয় করেন।

দোকানের ডেকোরেশন এর জন্য কিছু নিয়ম নিচে দেওয়া হলো এগুলো ফলো করুন

  1. ক্রেতা যেন দোকানে এসে স্বাচ্ছন্দ বোধ করে ।
  2. দোকানটির সাজ ও আসবাব এমন হতে হবে যাতে দোকানে একটি সুন্দর পরিবেশের আবির্ভাব ঘটে ।
  3. পন্যটি এমনভাবে প্রদর্শন করতে হবে যাতে ক্রেতা এটি সহজেই দেখতে পায় এবং পর্যবেক্ষন ও করতে পারে ।
  4. যতদূর সম্ভব পন্যটি ক্রেতার চোখ বরাবর প্রদর্শন করতে হবে যাতে এটি ক্রেতার দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হয়।
  5. দোকানটির সামনের দিকাটিকে আকর্ষনীয় জিনিস দিয়ে সাজাতে হবে যাতে দোকনের প্রতি আকর্ষিত হয়ে দুরকমের ক্রেতাই দোকােন চলে আসে-নিয়মিত যারা কিনে থাকে এবং যারা সম্ভাব্য ক্রেতা তারাও ।
  6. দোকানের ভিতরে স্বাচ্ছন্দে চলাচলের জন্য যতেষ্ট জায়গা থাকতে হবে যাতে ক্রেতার চলার পথে কোন বাধা না পড়ে ।
  7. পন্যগুলো সুন্দর ভাবে সাজানোর জন্য প্রয়োজন মত তাক ব্যবহার করতে হবে ।
  8. দোকানটির ভিতরটিকে আকর্ষনীয় রং দিয়ে সাজালে একটি উৎফুল্ল পরিবেশের সৃষ্টি হবে যেখানে কেনা কাটা করতে ক্রেতার ভালো লাগবে ।
  9. ক্যাশ কাউন্টারটি একটি নিরাপদ স্থানে বসাতে হবে ( যেমন এটা যেন দরজার কাছাকাছি না হয়) এবং বিক্রির লেনদেনের কাজটি দ্রুত সম্পাদন করতে হবে ।
  10. পন্যের ষ্টোর ক্রেতার দৃষ্টির বাইরে হতে হবে ।
  11. ষ্টোরের ব্যবস্থা এমন হতে হবে যাতে সহজেই পন্যগুলো সেখান থেকে বের করে আনা যায় ।
  12. এটা আবশ্যক নয় যে দোকানে ক্রেতার বসার ব্যবস্থা থাকতে হবে- তবে বিক্রয় প্রতিনিধির বসার ব্যবস্থা থাকতে হবে ।
  13. প্রতিটি প্রদর্শিত পণ্যতে মূল্য থাকেতে হবে ।
  14. দোকানের সামগ্রিক চেহারা ছিমছাম এবং পরিপাটি হতে হবে ।

✅ব্যবহারঃ

ব্যবহার আপনার ব্যবসাটি দ্বার করাতে ৮০% ভুমিকা পালন করেন।এখন আসি সল্প টাকা দিয়ে ব্যবসা শুরু করবেন কিভাবে, প্রথমে আপনাকে এমন একটি স্থান খুজে বের করতে হবে যেখানে ঘনবসতি কিন্তু “মদির” ভালো কোন দোকান নেই। 

এমন অনেক স্থান রয়েছে আপনি খুজলেই পেয়ে যাবেন।যেখানে আপনি সহজ সত্বে দোকান ঘর পেয়ে যাবেন। এবং তখন আপনাকে গুরুত্ব দিতে হবে (ডেকোরেশন ও পন্যের উপর)।

অন্যের গ্রাহক নিজের দোকান আনতে আপনি কিছুদিন সামন্য লোস শিকার করে পন্য বিক্রয় করতে পারবেন। এ ধরনের ব্যবসার উইক পয়েন্ট গুলো হলো বাকি দেওয়া, যদি সামান্য দুই টাকা লাভের আসায় দশ টাকা বাকি দিয়ে ফেলেন তাহলে আপনার ব্যবসাটি না করাই ভালো। 

✅মুদির ব্যবসার জন্য-সঠিক পন্য বাচাইঃ

দেখা যায় সর্বাধিক গ্রাহকের পন্য আপনার দোকানে নেই। আপনার কাছে আছে এমন পন্য যা গ্রাহকের তেমন প্রয়োজন হয় না, এধরনের পন্য আপনি রাখবেন না। এগুলো ফলো করলে আপনি মুদি দোকান সফলতা অর্জন করতে পারবেন। নিচে কিছু মুদি দোকানের পণ্যের তালিকা দেওয়া হল-

  • রান্নাবান্না: বিভিন্ন কোম্পানির চাল, মসলা, তেল, রেডি মিক্স, লবণ, চিনি, গোলাপ জল, সিরকা, কেওরা পানি, ভিনেগার, সেমাই ও সুজি, নুডুলস, আচার, তাল মিসরি, কর্ণ ফ্লাওয়ার, বেকিং সোডা, বেকিং পাউডার,  ফুড কালার ইত্যাদি।
  • বেকারি ও খাবার: কুকিস, ব্রেড, বিস্কুট, কেক, চানাচুর, জ্যাম, জেলি, মধু, কেল্ট, মকানই, সস, কে-চাপ, চুইংগাম ইত্যাদি।
  • স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য: শ্যাম্পু, সাবান, টুথপেস্ট, ডিটারজেন্ট পাউডার, ব্রাশ, মাউথ ওয়াশ, স্যানিটারি ন্যাপকিন, হেয়ার রিমুভাল, শেভিং ক্রিম, স্কিন ক্রিম, স্কিন পাউডার, লোশন, নারিকেল তেল, সরিষার তেল, ফেসিয়াল ও টয়লেট টিস্যু, সেভলন, হ্যান্ড ওয়াশ, খাবার স্যালাইন, টেস্টি হজমি ইত্যাদি।
  • পানীয়:আইসক্রিম, কোল্ড ড্রিংকস, জুস, পাউডার ড্রিংক, মিনারেল ওয়াটার, , চা পাতা, কফি ইত্যাদি।
  • নিত্য প্রয়োজনীয়:কাগজ, কলম, খাতা, পেন্সিল, মার্কার, কালার পেন, রাবার, ব্যাটারি, আলতা, চুড়ি কানের দুল, বাচ্চাদের খেলনা, নেল পালিশ, মালা, সুঁই, বোতাম, ব্লেড, আইকা, গাম, গ্লু ইত্যাদি।

আমাদের শেষ কথা

বন্ধুরা, আশা করি "মুদির ব্যবসার আইডিয়া" সম্পর্কে আপনি বুঝতে পারছেন, পোস্টটি ভালো লাগল বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের (অনলাইন কাজ) ওয়েবসাইট সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাইটটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন নতুন নতুন সব পোস্ট পাওয়ার জন্য ভালো থাকবেন।

📝রাইটার- মোঃ রকি ইসলাম

📃Founder of onlinekaj.com

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post