নিজের Self-Confidence বাড়ানোর উপায়(মোটিভেশনাল)

Self-Confidence বাড়ানোর উপায়ঃপ্রশ্নটা হলো অনেকটা এরকম নিজের Self- Confidence কে কীভাবে বাড়িয়ে তুলব। আর আজকের এই পোস্টে প্রথমবারের মতো আমি আমার Life এর Secret তোমাদের সাথে শেয়ার করব। যেটা এক সময় আমাকে অনেক কষ্ট দিয়েছিল অনেক pain দিয়েছিল, এবং অবশ্যই সেটা Self - Confidence related।

আজকের এই পোস্টে এই topic টাকে গভীরে গিয়ে আলোচনা করব, এবং অবশ্যই বোঝার চেষ্টা করব, “কীভাবে আমরা Self - Confidence কে বাড়িয়ে তুলতে পারি”(কোথায় থেকে Self - Confidence এর জন্ম হয়) এবং যারা already Confident মানুষ তারা এই পোস্টটা  শেয়ার করে দিও তাদের কাছে যাদের Confidence কম।

অবশ্যই পড়ুন

অনেকে সাহায্য চায় আমাদের থেকে,অনেকে চায় কেউ এসে তাকে একটু motivate ( অনুপ্রাণিত)  করুক একটু boosted দেক। আর যাদের Self - Confidence কমে তলানীতে ঠেকে আছে, তারা এই পোস্টটা দেখে অনেক উপকার পাবে। 

নিজের আত্নবিশ্বাস বাড়ানোর (Ninja)টেকনিক?

self-confidence বাড়ানোর উপায়ঃপ্রশ্নটা হলো অনেকটা এরকম নিজের Self- Confidence কে কীভাবে বাড়িয়ে তুলব। আর আজকের এই পোস্টে প্রথমবারের মতো আমি আমার Life এর Secret তোমাদের সাথে শেয়ার করব। যেটা এক সময় আমাকে অনেক কষ্ট দিয়েছিল অনেক pain দিয়েছিল, এবং অবশ্যই সেটা Self - Confidence related।

Self-Confidence(নিজের আত্নবিশ্বাস) কী? সেটা বোঝার আগে "আত্নবিশ্বাস"কে কীভাবে বাড়াবে? সেটা বোঝার আগে, তোমার আগে যেটা জানা জরুরী সেটা হলো "What's Self Strem?"  ছোট্ট করে একটু বলি "আত্মসম্মান" হলো এমন একটা অনুভূতি যেটা একজন মানুষ নিজেই নিজের প্রতি অনুভব করে। সহজ ভাষায় বলতে গেলে তুমি নিজে, নিজেকে যে চোখে দেখো সেটাই হলো তোমার Self strem(আত্মসম্মান)।

একটা সময় ছিল আজ থেকে প্রায় দুই তিন বছর আগে হয়তো-বা আমি একটা PABE গান গাইতাম এবং সেই PABE প্রত্যেক সপ্তাহে একদিন করে show করতাম এবং আমাকে per show তে হাজার টাকা দেওয়া হতো। যেহেতু আমি খুব গরিব মধ্যবিত্ত ঘরের ছেলে তো আমি যখন সেখানে যেতাম দেখতাম সবাই বড় বড় গাড়ি করে আসছে, দামী খাবার খাচ্ছে দামি পোশাক পরে আছে। আমি কেনো জানি না ছোট থেকে খুব বড়লোকদের মাঝে বা যাদের life style খুব happy বা highprofile নিজেকে তাদের মাঝে কখনো মানিয়ে উঠাতে পারিনি।

অবশ্যই পড়ুন

কারণ আমার নিজের একটা ছাপোষা life style বরাবরই। তো তখন না আমি যখন ট্রেজে গান গাইতাম কেউ আমাকে দেখতো কেউ আমাকে দেখতো না কেউ পাত্তাই দিতো না। তখন না আমার মনে ভয় লাগা কাজ করলো।তখন মনের মধ্যে ভয় চলে আসলো। আমি হয়তো পছন্দ করি না PABE  গান গাওয়া। তখন প্রত্যেক রবিবারের আগের  রাতে আমি যখন শুইতাম তখন শুয়ে শুয়ে ভাবতাম কেনো কালকে রবিবার আসছে আমি just আর পারছি না।

তখন ভাবলাম হয়তো কাজটা আমি ভালোবাসি  না কিন্তু তারপর যখন বয়স বাড়লো তখন বুঝলাম self stream বা নিজেকে খুব কম ভাবতাম তখন । তাই আমি যখন গান গাইতাম তখন মাঝে মাঝে আমি লেডিস্ ফুরে যাইতাম। 

আমি একটা কথা বললে খুব confidently বলতে পারতাম না মনে হতো কথাটা কী আদৌও কারো ভালো লাগবে, কথাটা কী আদৌও কেউ শুনবে, কেউ কী আদৌও পাত্তা দিবে।

আত্নমর্যদা বাড়ানঃ

কারণ আমি নিজেকে নিয়ে খুব কম ভাবতাম। এখান থেকে আমার self stream down হয়ে গিয়েছিল।  আমি নিজেকে সবার থেকে খুব কম ভাবতাম। তুমি নিজেকে কম ভাবো? Trust me আমি সেই সময়টার experience থেকে বলতে পারি আমরা কেউ perfect নই It's ok কিন্তু সবথেকে জরুরী হলো আমরা কীসে perfect না কোন জায়গায় কম অন্যদের থেকে কম তা চিহ্নিত করা,তাহলে দেখবেন নিজের আত্মাবিশ্বাস বাড়বে

নিজের ভুলগুলা শনাক্ত করুনঃ

হতে পারে তুমি ইংলিশ খুব ভালো একটা বলতে পারো না বা হতে পারে তুমি নতুন কারো সাথে ভালো করে কথা বলতে পারো না, ভয় লাগে হতে পারে কোনো কাজ করার আগেই তুমি হতাশ হয়ে যাচ্ছো আদৌও কী কাজটা হবে আমার দ্বারা। এগুলো হবে It's ok কিন্তু confidence কথা হলো  confidence কোথায় থেকে আছে ব্যাপারটা practically বোঝার চেষ্টা করো।Basically confidence আছে আমাদের কোনো কাজের ওপর expartly থেকে।

নিজের ভুলগুলা শনাক্ত করুনঃ

তো তুমি যদি তোমার ভুল গুলো গোল দাগ দিয়ে চিহ্নিত না করো তাহল সেগুলোকে সংশোধন করার চেষ্টা করতে পারবে না। কারণ তুমি যদি ভাবো আমি সব জানি তাহলে হবে কী করে।

 অবশ্যই পড়ুন

নিজের যেটা ভুল সেটা মেনে নাও, আমি এটাই কম কোনো ক্ষতি নেই নিজেকে কম করে মানতে। self stream down হবে না। আমি কম কিন্তু এই কম তাকে নিয়ে পরিশ্রম করব।প্রত্যেক দিন একটু একটু চেষ্টা করে এই কম তাকে বেশিতে পরিণত করবো।এভাবে তোমার self-confidence(আত্নবিশ্বাস) বৃদ্ধি পাবে।


নিজের সাহস বৃদ্ধি করুনঃ

তোমার কেনো হয় না বলো তো?তুমি যখনি কোনো একটা জিনিস কে ভয় পাও বা  face করতে ভয় পাও এবং তুমি সেটা থেকে ১ কি.মি. দূরে পালিয়ে যাও এরকম করলে জীবনেও তোমার আত্নমর্যাদা বৃদ্ধি পাবে না। 


নিজের সাহস বৃদ্ধি করুনঃ

সারাজীবন কান্নাকাটি করবে আমার confidence নেই। কী করে confidence বাড়াবো?এই পোস্ট পরার পরেও দশবার প্রশ্ন করতে হবে কারণ তোমরা সবাই short cart খোঁজো। short cart এ কখনো confidence বাড়ানো সম্ভব নয়। কোনো একটা জিনিস কে ভয় পেয়ে পালিয়ে গেলে confidence হয় না বরং এটার যতো কাছে আসবে সেটাকে যতো face করবে, সেটাকে যতোটা চিনবে, জানবে ততো confidence বাড়বে। বুঝতে পারলে, পালিয়ে গেলে হবে না। তোমরা পালিয়ে যাও চেষ্টা করতে পারো না।

কথা বলার ভাব-ভঙ্গি পরিবর্তনঃ 

কথা বলার ভাব-ভঙ্গি পরিবর্তনঃ

তোমরা যখন অচেনা মানুষের সাথে কথা বলতে যাও বা interview দিতে যাও তখন ভাবো যে,ওই লোকটা আমাকে কী ভাববে কারণ আমাদের সমাজটা এইভাবেই তৈরি হয়ে গেছে, আমরা খালি ভাবি লোকটা কী ভাববে। তো confidence  উল্টো দিকের মানুষটা অনেক সময় হারিয়ে যায়  বা interview তে হারিয়ে যায়  সে তোমরা কী ভাবছো প্রথমে না প্রথমে হলো তোমাকে চেষ্টা করতে হবে। 

অবশ্যই পড়ুন

তো confidence বাড়ানোর কোনো secret ফর্মুলা নেই। Reality বোঝো confidence আছে কই থাকে। confidence আছে self strem থেকে confidence আছে expart থেকে confidence আছে practice থেকে এবং সেই practice প্রতিদিন চালিয়ে যাওয়ার মধ্যে দিয়ে otherwise, আর কোনো অপশন নেই। পরিশেষে, বলতে পারি যে,confidence বাড়ানোর জন্য চেষ্টা এবং পরিশ্রমের কোনো বিকল্প নেই।

আত্মবিশ্বাস মনোবল বাড়ায়। এটি কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সহায়তা করে। কম আত্মবিশ্বাস ব্যক্তির ব্যক্তিত্বের ওপর বাজে প্রভাব ফেলে; ব্যক্তিকে দুর্বল করে তোলে।

‘আমি পারি না’—এমন মনোভাব পরিবর্তন করে নিজেকে বলুন, ‘আমিও পারি।’তাহলে দেখবেন আপনার self-confidence আপনা আপ বৃদ্ধি পাবে।

নিজের অ্যাটিটিউড বদলানঃ

নিজের অ্যাটিটিউড বদলানঃ

মনে রাখবেন, মানুষ চাইলে করতে পারে না, এমন কোনও কাজ নেই। তার মানে এই নয় যে সব কাজই আপনি ভালো পারবেন বা কখনও ব্যর্থ হবেন না। ব্যর্থতাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিন, ‘আমার দ্বারা কিছুই সম্ভব নয়’ বলে মুষড়ে পড়বেন না। সোজা কথায়, নেগেটিভ চিন্তাভাবনাকে মোটেই প্রশ্রয় দেওয়া চলবে না। ঋণাত্মক চিন্তার মুখোমুখি দাঁড়ান প্রতিদিন, সেগুলিকে উপড়ে ফেলার চেষ্টা করুন। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজেকে বলুন যে আপনি পারবেন। নিজেকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা কখনও বন্ধ করবেন না।

লক্ষ্য স্থির করুনঃ

নিজের জন্য লক্ষ্য স্থির করে নিন। প্রতিদিন সেই লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য একটু একটু করে তৈরি হোন। নিজের দুর্বলতাগুলিকে চিনুন, জোরের জায়গাগুলিকেও। একমাত্র তা হলেই বুঝতে পারবেন যে অভীষ্ট সিদ্ধ করার জন্য ঠিক কতটা প্ল্যানিং বা পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে।

নিজের জন্য লক্ষ্য স্থির করে নিন। প্রতিদিন সেই লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য একটু একটু করে তৈরি হোন। নিজের দুর্বলতাগুলিকে চিনুন, জোরের জায়গাগুলিকেও। একমাত্র তা হলেই বুঝতে পারবেন যে অভীষ্ট সিদ্ধ করার জন্য ঠিক কতটা প্ল্যানিং বা পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে।

রোজ এমন কিছু একটা করুন যা করতে ভয় লাগেঃ 

রোজ এমন কিছু একটা করুন যা করতে ভয় লাগেঃ

প্রত্যাখ্যাত হওয়ার ভয়টা তাড়া করে বেড়ায় আপনাকে? তা হলে প্রতিদিন প্রত্যাখ্যান হজম করাটা প্র্যাকটিস করতে হবে। সেটা কীভাবে সম্ভব ভেবে পাচ্ছেন না? মানুষের কাছে এমন অনুরোধ নিয়ে যান, যা প্রত্যাখ্যাত হতে বাধ্য। প্রতিদিন দশবার রিজেকশন সহ্য করলে সাতদিন পর দেখবেন মুখের উপর ‘না’ শুনলে গায়ে লাগছে না!

জেতার অভ্যেস তৈরি করুনঃ

জেতার অভ্যেস তৈরি করুনঃ

যেদিন থেকে আপনি জিততে আরম্ভ করবেন, সেদিন থেকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হবে না! শুরু দিকে সেট করুন ছোট টার্গেট, পরে বড়ো লক্ষ্যের দিকে যাবেন। টানা সাতদিন আধ ঘণ্টা ব্যায়াম করুন, রাত দশটায় ঘুমোতে যান, পেস্ট্রি থেকে দূরে থাকুন… হয়তো 15 দিন অনলাইন শপিং করলেন না। এইভাবে ছোট ছোট হার্ডল পার হলে নিজেরই ভালো লাগতে আরম্ভ করবে। অন্য কাউকে বিপদে পড়তে দেখলে বাড়িয়ে দিন সাহায্যের হাত। তাকে জিততে দেখলেও আপনার আত্মবিশ্বাস ফিরে আসবে।

বডি ল্যাঙ্গুয়েজ ও সাজপোশাকে পরিবর্তন আনুন:

বডি ল্যাঙ্গুয়েজ ও সাজপোশাকে পরিবর্তন আনুন

যাঁরা জীবনে খুব সফল, তাঁদের মধ্যে কতগুলো সাধারণ গুণ থাকে। তাঁরা সুন্দর সাজগোজ করেন, মানুষের চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলেন, নিজের বক্তব্য পেশ করেন সুচারুভাবে। আপনাকেও এগুলি অভ্যেস করতে হবে। নিজের যত্ন নিন, ত্বক-চুল-নখ ঝকঝকে রাখুন। উজ্জ্বল হাসি আর ঝকঝকে ব্যক্তিত্ব অনেক যুদ্ধ জিতিয়ে দিতে পারে আপনাকে। যেমন-তেমন পোশাক পরে অফিস যাবেন না, সুন্দর সাজগোজ বা ব্যক্তিগত গ্রুমিংয়ের জন্যও খানিক সময় বরাদ্দ রাখুন।

আমাদের শেষ কথাঃ

বন্ধুরা, আশা করি আত্মবিশ্বাস কিভাবে বাড়াবেন আপনি বুঝতে পারছেন, পোস্টটি ভালো লাগল বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের (অনলাইন কাজ) ওয়েবসাইট সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাইটটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন নতুন নতুন সব পোস্ট পাওয়ার জন্য ভালো থাকবেন।

📝 রাইটারঃ সুমাইয়া জান্নাত রিয়া

📃 Onlinekaj.com

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post