ব্যকিত্ববান মানুষ হওয়ার উপায়-মোটিভেশনাল

ভালো "ব্যক্তিতের অধিকারী" হওয়ার মানে অন্যদের অনুসরণ করা নয়।এর অর্থ আপনার মাঝে যে ভালো দিকটি আছে সেটি খুঁজে বের করা এবং তা সবার কাছে তুলে ধরা।

নিজেকে সংশোধন করার জন্য মানুষের সব সময় সুযোগ থাকে।কিন্তু এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো আপনি নিজেকে নিয়ে সন্তুষ্ট আছেন কি না।

কাউকে দেখে আপনি ভাবেন ভালো ব্যক্তিত্ব সম্পূর্ণ মানুষ তিনি।এর কারণ কিন্তু লোকটি (ব্যক্তিত্বের চর্চা) করছে এমন না।এর কারণ লোকটি সৎ ও অমায়িক।

ভালো "ব্যক্তিতের অধিকারী" হওয়ার মানে অন্যদের অনুসরণ করা নয়।এর অর্থ আপনার মাঝে যে ভালো দিকটি আছে সেটি খুঁজে বের করা এবং তা সবার কাছে তুলে ধরা।

আপনিও কী নিজেকে ভালো ব্যক্তিত্বসম্পূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে চান?যদি এমন সত্যি চেয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্যই আমাদের আজকের আয়োজনটি।

এখানে পুরো প্রক্রিয়াটিকে দুটি প্রধান ভাগে ভাগ করা হয়েছে।প্রথমটি একান্ত নিজের ভেতরের উন্নয়ন আর দ্বিতীয়টি মানুষের সাথে আপনার প্রকাশভঙ্গি।

#.নিজের ব্যক্তিত্বকে ভেতর থেকে জাগিয়ে তোলার উপায়ঃ

১.নিজের কাছে সৎ থাকাঃ

বিভ্রান্ত পরিস্থিতিগুলো সব সময় অপ্রীতিকর।আপনি যা নন তা হওয়ার চেষ্টা করবেন না।(নতুন কারো সাথে পরিচিত হওয়ার সময় যদি তাদের সাথে কোনো বিষয়ে আপনার মিল না থাকে তবে ঘাবড়ানোর কিছু নেই)।

তাদের সাথে হালকা কথাবার্তা চালিয়ে যান এবং বন্ধুসুলভ ভাবে প্রশ্ন করুন।ধরে নিন আপনি একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছেন এবং সেখানে নতুন কিছু বন্ধু বানাতে চান কিন্তু কোনো একজনের সাথে কথা বলতে আপনার বিরক্ত লাগছে সেক্ষেত্রে কোনো রকম অভিনয় না করে বিনয়ের সাথে আন্তরিকতা শেষ করুন।

২.আনন্দে থাকাঃ

সব সময় ভালো কিছুর খোঁজ করুন।ইতিবাচক ধারণা রাখুন এবং "হাসিখুশি থাকুন"।একজন সুখী মানুষকে কেউ বাধা দিতে পারে না।এর অর্থ এই নয় যে আপনাকে নিজের সাথে প্রতারণা করতে হবে বা নিজের অনুভূতিগুলোকে ধামাচাপা দিতে হবে।

কোনো কিছু আপনার বিরক্তির কারণ হওয়া সত্ত্বেও হাসিখুশির ভাব ধরে রাখতে হবে এমনটি নয়।সবকিছুর ভালো দিক খুঁজে বের করুন এবং তা নিয়ে আনন্দে থাকুন।

৩.জনপ্রিয় হওয়ার চেষ্টা না করাঃ

অন্যদের কাছে “জনপ্রিয়” হওয়াই যদি আপনার মূল লক্ষ্য হয়ে থাকে তাহলে আপনি আপনার আসল উদ্দেশ্য থেকে দূরে সরিয়ে যাচ্ছেন তাই নয় কী?

গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো এমন একটা নির্ভরযোগ্য friend circle তৈরি করুন আপনি যাদের প্রতি আন্তরিক এবং যারা আপনার প্রতি অমায়িক।এমন কিছুর প্রতি ছুটবেন না যে আপনার অসংখ্যক বন্ধু থাকতে হবে ভেবে শুধু সংখ্যায় বন্ধু বাড়াচ্ছেন।

যাদের সঙ্গে আপনার ভালো লাগে শুধু তাদের সাথেই থাকুন।যদি সেটা সংখ্যায় প্রচুর হয় তাহলে ভালো আর যদি সংখ্যায় মাএ তিনজনও হয় তাহলেও চলবে।

৪.নিজের আগ্রহ বাড়ানোঃ

যেকোনো বিষয়ে কথা বলার “আগ্রহ” থাকাটা ভালো ব্যক্তিত্বের অন্যতম একটি প্রধান গুণ।এর মানে এমন নয় যে কোনো একটি দুর্বোধ্য বিষয়ে শুধুমাত্র আপনার আগ্রহ আছে বলেই সেটা শিখে ফেলতে হবে।

আবার আপনি যদি খুব সহজে ও মজা করে কোনো কিছু অন্যদেরকে  বুঝাতে ও শিখাতে আগ্রহী হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনি কী পছন্দ করেন কী করেন না সেটাও ব্যাপার না।

তাই প্রতিদিন কিছু না কিছু অন্তত করুন।বিনোদনমূলক কিছু দেখুন এবং নতুন নতুন শখ তৈরির মাধ্যমে নিজের (অভিজ্ঞতা) বাড়ান।

৫.যেকোনো বিষয়ে মতামত দেওয়াঃ

এটিও ঠিক আগ্রহ বাড়ানোর মতোই ব্যাপার।আপনি যখন অন্যদের সাথে কোনো একটি বিষয়ে কথা বলতে যাবেন খুব স্বাভাবিকভাবে আপনি চাইবেন সেই বিষয়টিতে “আপনার ধারণা” থাকুক।

অবশ্যই পড়ুন-

রাজনীতি, খেলাধুলা, বিনোদন অথবা অন্য যেকোন ব্যাপারে আপনার নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি করুন।কথা বলতে গিয়ে (নিজের মতামত) প্রকাশ করুন কারো কথার সাথে সমর্থন অথবা দ্বিমত প্রকাশ নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই।নম্র ভাষায় নিজের যুক্তি উপস্থাপন করুন।যারা নিজের মত প্রকাশ করতে সক্ষম এমন ব্যক্তিত্বকে মানুষজন সমীহ করে।

আমাদের শেষ কথাঃ

বন্ধুরা, আশা করি "ব্যকিত্ববান মানুষ" সম্পর্কে আপনি বুঝতে পারছেন, পোস্টটি ভালো লাগল বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমাদের (অনলাইন কাজ) ওয়েবসাইট সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাইটটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন নতুন নতুন সব পোস্ট পাওয়ার জন্য ভালো থাকবেন।

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment

By commenting you acknowledge acceptance of Whatisloved.com-Terms and Conditions

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post